অবশেষে কারামুক্ত হলেন পরীমনি

বিনোদন ডেস্ক: অবশেষে কারামুক্ত হলেন ঢাকাই সিনেমার নায়িকা পরীমনি। মাদক মামলায় গ্রেপ্তার হয়ে ১৮ দিন কারাভোগের পর তিনি ছাড়া পেলেন। আজ বুধবার (১ সেপ্টেম্বর) সকাল ৯টা ২১ মিনিটে আইনজীবী নীলাঞ্জনা রিফাত সুরভীর কাছে তাকে হস্তান্তর করেছেন কাশিমপুর কারা কর্তৃপক্ষ। কারাফটক থেকে একটি সাদা গাড়িতে করে বের হতে দেখা যায় পরীমনিকে। এ সময় তিনি সাদা পোশাকে ছিলেন। কাশিমপুর কেন্দ্রীয় মহিলা কারাগারের জেল সুপার হালিমা খাতুন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে সকাল সোয়া ৮টার দিকে নায়িকাকে নিতে কারাগারের সামনে উপস্থিত হয়েছিলেন পরীমনির আইনজীবী অ্যাডভোকেট নীলাঞ্জনা রিফাত সুরভী ও তার খালু জসিমউদদীনসহ আত্মীয় স্বজনরা।

মঙ্গলবার (৩১ আগস্ট) ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশ শুনানি শেষে ৫০ হাজার টাকা মুচলেকায় পরীমনির জামিন মঞ্জুর করেন। এর পর থেকেই কারাফটকে উৎসুক মানুষ অপেক্ষায় থাকেন। কিন্তু জামিনের কাগজপত্র কারাগারে বিলম্বে পৌঁছায় ওই দিন তিনি ছাড়া পাননি।

কাশিমপুর কেন্দ্রীয় মহিলা কারাগারের সুপার হালিমা আক্তার জানান, রাত ১০টার দিকে পরীমনির জামিনের কাগজপত্র-কারাগারে আসে। যাচাই-বাছাই শেষে বুধবার সকাল সাড়ে ৯টায় তাকে মুক্তি দেয়া হবে।

গত ৪ আগস্ট রাতে ঢাকার বনানীতে পরীমনির বাসায় অভিযান চালিয়ে মাদকদ্রব্যসহ তাকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। পরদিন তার বিরুদ্ধে বনানী থানায় মাদক আইনে মামলা করা হয়। মামলায় তিন দফায় সাত দিন রিমান্ডে নিয়ে পরীমনিকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে সিআইডি। তৃতীয় দফা রিমান্ড শেষে গত ২১ আগস্ট পরীমনিকে আদালতে হাজির করা হলে বিচারক তাকে কাশিমপুর কেন্দ্রীয় মহিলা কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, পরীমনি ২০১৬ সাল থেকে মাদক সেবন করতেন। এমনকি এলএসডি ও আইসও সেবন করতেন তিনি। এজন্য বাসায় একটি ‘মিনিবার’ তৈরি করেন। বাসায় নিয়মিত ‘মদের পার্টি’ করতেন। চলচ্চিত্র প্রযোজক নজরুল ইসলাম রাজসহ আরও অনেকে তার বাসায় অ্যালকোহলসহ বিভিন্ন ধরনের মাদকের সরবরাহ করতেন ও পার্টিতে অংশ নিতেন।

২০১৪ সালে সিনেমায় ক্যারিয়ার শুরু করা পরীমনি এ পর্যন্ত ৩০টি সিনেমা ও বেশ কয়েকটি টিভিসিতে অভিনয় করেছেন। পিরোজপুরের মেয়ে পরীমনিকে চলচ্চিত্র জগতে নিয়ে আসেন প্রযোজক রাজ।

বিনোদন এর সাম্প্রতিক