৮৫ বছরের বৃদ্ধের সঙ্গে কিশোরীর বিয়ের ঘটনা তদন্তের নির্দেশ

নওরোজ নিউজ ডেস্ক : জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জে সালিশে বৈঠকে ৮৫ বছরের বৃদ্ধের সঙ্গে ১২ বছরের কিশোরীকে বিয়ে দেয়ার ঘটনা তদন্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

জামালপুরের ডিসি, এসপি ও দেওয়ানগঞ্জের ওসিকে ঘটনা তদন্ত করে আগামী রোববারের (২৯ নভেম্বর) মধ্যে প্রতিবেদন দিতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।মঙ্গলবার (২৪ নভেম্বর) হাইকোর্টের বিচারপতি এফআরএম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি শাহেদ নুরউদ্দিনের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

বৃদ্ধের সঙ্গে ১২ বছরের কিশোরীর বিয়ের ঘটনাটি হাইকোর্টের নজরে আনেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এবিএম আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার।

তিনি জানান, একটি শিশুর বিয়ে দেয়ার ঘটনা আমরা নজরে এনেছিলাম। আদালত জামালপুরের ডিসি, এসপি ও দেওয়ানগঞ্জের ওসিকে ঘটনা তদন্ত করে আগামী রোববারের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলেছেন।

গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়, জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার চর আমখাওয়া ইউপির বয়ড়াপাড়া গ্রামের একটি মহিলা মাদরাসার পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীর সঙ্গে একই এলাকার সুরমান আলীর বখাটে ছেলে শাহিনের শারীরিক সম্পর্ক হয়।একপর্যায়ে ওই শিক্ষার্থী অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। পরে কবিরাজি চিকিৎসায় মেয়েটির গর্ভপাত ঘটানো হয়। বিষয়টি ফাঁস হয়ে যাওয়ায় গত ১৬ নভেম্বর স্থানীয় ইউপি সদস্য ও স্থানীয় মাতব্বররা এ বিষয়ে সালিশ বৈঠক করেন।

সালিশে ধর্ষক শাহিনকে ১০টি দোররা মেরে তার কর্মকাণ্ডের দায় চাপিয়ে দেয়া হয় ৮৫ বছরের বৃদ্ধ দাদার ওপর। পরে দাদা মহির উদ্দিনের সঙ্গে ভুক্তভোগী কিশোরীর বিয়ে দেন স্থানীয় মাতব্বররা।

আইন ও আদালত এর সাম্প্রতিক